কৃষকনেতা সুজন মিয়াকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার ও র‌্যাব কতৃক নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ২৩ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকাল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত

21942234_1682185291800559_1485065131_n

তারিখ ঃ ২৩/০৯/১৭ প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কৃষকনেতা সুজন মিয়াকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার ও র‌্যাব কতৃক নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ২৩ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকাল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত

কৃষক নেতা সুজন মিয়াকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার ও র‌্যাব কতৃক নির্মম নির্যাতনের প্রতিবাদে এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ২৩ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকাল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্টের প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সহ-সভাপতি শ্যামল কুমার ভৌমিক। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ব্রিগেঃ জেনাঃ (অবঃ) এম. জাহাঙ্গীর হুসাইন, সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইয়াছিন, শাহজাহান কবির, প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, জাতীয় ছাত্রদলের আহ্বায়ক কামরুল হক লিকু প্রমুখ। সমাবেশটি পরিচালনা করেন সহ-সম্পাদক প্রকাশ দত্ত। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সিলেট জেলা কৃষক সংগ্রাম সমিতির যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং রাবার শ্রমিক সংঘের যুগ্ম-সম্পাদক সুজন মিয়াকে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলায় গত ১৫ সেপ্টেম্বর ভোর ৪টায় র‌্যাব-৯ তার নিজ বাড়ী থেকে আটক পূর্বক নির্মম নির্যাতন করে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। আটক সুজনকে ৫দিন পর গত ১৯ সেপ্টেম্বর বিকালে আদালতে সোপর্দ করে। তার নামে রাতারাতি ২০টি মামলা দায়ের করে। এ সকল মামলা মিথ্যা, বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক। প্রকৃত ঘটনা হলো ৪দলীয় জোট সরকার আমলে জামাত নেতা রহমান আল মক্কা হাউজিং কোম্পানীর মাধ্যমে ১১টি গ্রামের দরিদ্র কৃষকদের উচ্ছেদ করে আবাসন প্রকল্প তৈরী করতে চেয়েছিল। কিন্তু এলাকার জনগণ ভিটে-মাটি এবং চাষের জমি থেকে উচ্ছেদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুললে তা কার্যকরি করতে পারে না। পরবর্তীতে ক্ষমতার পালাবদল ঘটলে বর্তমান সরকারী দলের কতিপয় নেতার লোলপ দৃষ্টি পড়ে ঐ ভুমির উপর, তারাই সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বিভিন্ন সময় এলাকার নিরিহ কৃষক-জনগণের উপর হামলা চালায় এবং সরকারী আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমুহকে ব্যবহার করে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার-নির্যাতন-দমন-পিড়ন চালায়। এই পরিস্থিতির শিকার সুজন মিয়া। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সুজন মিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও বিচার বিভাগীয় তদন্ত সাপেক্ষে নির্যাতনকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। সমাবেশের পর একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব থেকে শুরু হয়ে পুরাতন পল্টন গিয়ে শেষ হয়।

বার্তা প্রেরক
শাহজাহান কবির
সহ-সম্পাদক
কেন্দ্রীয় কমিটি
০১৭-১২০৫-৮২৪৫

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *